ওয়াকারের প্রশ্ন—দরজা বন্ধ করে খেলতে হবে কেন

করোনাভাইরাসের কারণে পৃথিবীর কোথাও খেলা নেই। সম্প্রতি অস্ট্রেলিয়ার কোচ জাস্টিন ল্যাঙ্গার দর্শকবিহীন পরিবেশে হলেও ক্রিকেট শুরু করা যেতে পারে বলে মত দেন। পাকিস্তানের সাবেক অধিনায়ক ও বর্তমানের বোলিং কোচ ওয়াকার ইউনিস এর তীব্র বিরোধিতাই করেছেন ‘দরজা বন্ধ করে ক্রিকেট খেলতে হবে কেন?’ প্রশ্নটা ওয়াকার ইউনিসের। পাকিস্তানের কিংবদন্তি ক্রিকেট তারকা ভেবে পাচ্ছেন, না যখন সারা দুনিয়াজুড়ে করোনাভাইরাসের প্রকোপ, প্রতিদিন মৃত্যুর তালিকা দীর্ঘ হচ্ছে, তখন ক্রিকেট খেলার জন্য এতটা আকুলতার কোনো মানেই দেখেন না তিনি। ওয়াকারের মতে, এমন কিছু হলে (করোনার মধ্যেই ক্রিকেট) সেটি বরং সমস্যাই বাড়াবে, ‘আমি কোনোমতেই দর্শকবিহীন ক্রিকেটের পক্ষপাতি নই। এটা সমস্যাই তৈরি করবে।’ ওয়াকার মনে করেন, খেলার জন্য আরও অপেক্ষা করা উচিত, ‘আমার মনে হয় পাঁচ-ছয় মাস ক্রিকেট না খেললে এমন কিছু যাবে-আসবে না। দরজা বন্ধ করে খেলতে হবে কেন? পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়ে এলে তখন ক্রিকেট খেলার কথা ভাবা যাবে, সেটি দর্শকশূন্য মাঠেও হতে পারে। এ পরিস্থিতিতে এসব নিয়ে কথা বলাই উচিত নয়।’ কেবল ল্যাঙ্গার নন, বেশ কয়েকজন সাবেক ক্রিকেটারই নিজেদের ক্রিকেট বোর্ডকে ধীরে ধীরে ক্রিকেট শুরু করার অনুরোধ জানিয়েছেন। তাঁদের মতে, দর্শকবিহীন স্টেডিয়ামে সতর্কতামূলক ব্যবস্থা নিয়ে ক্রিকেট শুরু করা যেতে পারে। দর্শকশূন্য মাঠে এ মুহূর্তে ক্রিকেট আয়োজনের বিরোধিতা করলেও ওয়াকার আশা করেন এ বছরই অস্ট্রেলিয়াতে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপটা হবে। সেটি যদি কয়েক সপ্তাহ দেরি করেও শুরু হয়, তাতেও তাঁর কোনো আপত্তি থাকবে না বলে জানিয়েছেন বর্তমানে পাকিস্তান দলের বোলিং কোচ, ‘বিশ্বকাপ এ বছরই হোক। উদ্ভূত পরিস্থিতিতে সেটি পিছিয়ে যেতে পারে কিছুটা, তাতে সমস্যা নেই। আশা করি তার আগেই পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়ে আসবে।’