কুমিল্লায় আরও ৭৬ জনের করোনা শনাক্ত, চৌদ্দগ্রামে প্রথম মৃত্যু

কুমিল্লা জেলায় আজ মঙ্গলবার আরও ৭৬ জনের শরীরে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে এই জেলায় মোট ১ হাজার ৯৬ জনের করোনা শনাক্ত হলো। জেলা করোনাবিষয়ক ফোকাল পারসন মো. সাহাদাত হোসেন বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। এদিকে জেলার চৌদ্দগ্রাম উপজেলায় নতুন করে আক্রান্তের সংখ্যা ক্রমাগত বাড়ছে। এ উপজেলায় আজ মঙ্গলবার ১৬ জনের করোনাভাইরাসের সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছে। এর আগে গতকাল সোমবার ১৩ জন, ৩১ মে ৬ জন ও ৩০ মে ১৫ জনের করোনা শনাক্ত হয়। টানা চার দিনে এই উপজেলায় ৫০ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এর আগে এই উপজেলায় রোগী শনাক্ত হয়েছিল মাত্র ১৩ জন। সব মিলিয়ে এই উপজেলায় আক্রান্ত এখন ৬৩ জন। এর মধ্যে চৌদ্দগ্রাম পৌরসভার চান্দেশকরা এলাকার ৬৫ বছরের এক ব্যক্তি গত ৩১ মে মারা যান। আজ মঙ্গলবার নমুনা পরীক্ষার প্রতিবেদনে তাঁর করোনা পজিটিভ আসে। মঙ্গলবার নতুন শনাক্ত হওয়া ৭৬ জন রোগীর মধ্যে চৌদ্দগ্রামের ১৬ জন ছাড়াও কুমিল্লা সিটি করপোরেশন এলাকায় ১৪ জন, দেবীদ্বারে ১৪ জন, বুড়িচংয়ে ৯ জন, ব্রাহ্মণপাড়ায় ৯ জন, লাকসামে ৭ জন, বরুড়ায় ৪ জন, মুরাদনগরে ২ জন ও আদর্শ সদর উপজেলায় ১ জন আছেন। এদিন সুস্থ হয়েছেন দেবীদ্বারে ১১ জন, বুড়িচংয়ে ৩ জন, মুরাদনগরে ১ জনসহ ১৫ জন। মঙ্গলবার চান্দিনা ও চৌদ্দগ্রামে একজন করে মারা গেছেন। জেলার ১৭ উপজেলা ও সিটি করপোরেশন এলাকায় মোট ১ হাজার ৯৬ জন কোভিড–১৯ রোগীর মধ্যে সুস্থ হয়েছেন ১৫২ জন। মারা গেছেন ৩০ জন। মৃত ব্যক্তিদের মধ্যে দেবীদ্বারে এক নারীসহ ১০ জন, মুরাদনগরে ৫ জন, চান্দিনায় ৬ জন, কুমিল্লা সিটি করপোরেশন এলাকায় এক নারীসহ ২ জন, আদর্শ সদর উপজেলা, ব্রাহ্মণপাড়া, নাঙ্গলকোট, মেঘনা, লালমাই, লাকসাম ও চৌদ্দগ্রাম উপজেলায় ১ জন করে আছেন। জেলা সিভিল সার্জন কার্যালয়ের চিকিৎসা কর্মকর্তা মো. এনামুল হক বলেন, কুমিল্লা জেলায় গত ৯ এপ্রিল প্রথম করোনা শনাক্ত হয়। গত ২৯ মে পর্যন্ত চৌদ্দগ্রামে মোট রোগী শনাক্ত হয় মাত্র ১৩ জন। গত চার দিনে রোগী শনাক্ত হয়েছে ৫০ জন। একজন মঙ্গলবার মারা গেছেন। নতুন করে চৌদ্দগ্রাম উপজেলায় রোগীর সংখ্যা বাড়ছে। সেখানকার কমিউনিটিতে এটি সংক্রমিত হচ্ছে।