ভার্চ্যুয়াল কোর্ট অধস্তন আদালতের সার্বিক পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ ও সমন্বয়ে কমিটি

অধস্তন আদালতের বিচারকদের ও সহায়ক কর্মকর্তা-কর্মচারীদের শারীরিক অবস্থা এবং ভার্চ্যুয়াল শুনানির মাধ্যমে আদালত পরিচালনায় যেকোনো সমস্যা সার্বক্ষণিক মনিটরিংসহ প্রয়োজনীয় পরামর্শ প্রদান, সার্বিক পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ এবং অন্যান্য বিষয়ে সমন্বয়ের জন্য একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। সুপ্রিম কোর্টের রেজিস্ট্রার জেনারেল মো. আলী আকবর স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে আজ মঙ্গলবার এই তথ্য জানা গেছে। হাইকোর্ট বিভাগের রেজিস্ট্রার মো. গোলাম রব্বানীকে সভাপতি করে গঠিত কমিটির অপর চার সদস্য হলেন অতিরিক্ত রেজিস্ট্রার (প্রশাসন ও বিচার) মোহাম্মদ ওসমান হায়দার, স্পেশাল অফিসার মো. সাইফুর রহমান, ডেপুটি রেজিস্ট্রার (প্রশাসন ও বিচার) মোহাম্মদ আক্তারুজ্জামান ভূইয়া ও সহকারী রেজিস্ট্রার (বিচার) মো. মিজানুর রহমান। ‘অধস্তন দেওয়ানি ও ফৌজদারি আদালত এবং ট্রাইব্যুনালসমূহে করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) সংক্রমন রোধে স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করা হচ্ছে কি না এবং ভার্চ্যুয়াল শুনানির মাধ্যমে কোর্ট পরিচালনার ক্ষেত্রে প্রতিবন্ধকতা নিরসনসহ সার্বিক বিষয়ে কমিটি গঠন প্রসঙ্গে’ দেওয়া ওই বিজ্ঞপ্তিটি আজ সুপ্রিম কোর্টের ওয়েবসাইটে প্রকাশিত হয়। বিজ্ঞপ্তির ভাষ্য, উপর্যুক্ত বিষয়ে নির্দেশিত হয়ে জানানো যাচ্ছে যে দেশব্যাপী করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা নিশ্চিতকরণ ও শারীরিক উপস্থিতি ছাড়া তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবহার করে বিচারকার্য পরিচালনার লক্ষ্যে ৩০ মে দেওয়া বিজ্ঞপ্তিতে প্র্যাকটিস নির্দেশনা জারি করা হয়। উদ্ভূত পরিস্থিতিতে সরকার কর্তৃক সময়ে সময়ে জারি করা স্বাস্থ্যবিধি বাধ্যতামূলকভাবে অনুসরণ করা হচ্ছে কি না, তা পর্যবেক্ষণ করা আবশ্যক। কোভিড-১৯–এর লক্ষণ, উপসর্গ নিয়ে অসুস্থ বিচারক এবং সহায়ক কর্মকর্তা-কর্মচারীদের স্থানীয় স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের সঙ্গে দ্রুত যোগাযোগ করে স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করা আবশ্যক। এ বিষয়ে প্রতিটি জেলার দায়িত্বপ্রাপ্ত জেলা জজ/মহানগর দায়রা জজ ও চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট/চিফ ম্যাট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট বিভিন্ন স্তরের বিচারকদের সমন্বয়ে মনিটরিং কমিটি গঠন করবেন বলেও বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়েছে।