জেলা জজ পদমর্যাদার শূন্য পদে শিগগিরই পদায়ন

দেশের অধস্তন আদালতগুলোয় জেলা জজ পদমর্যাদার প্রায় অর্ধশত পদ শূন্য রয়েছে। এসব পদে শিগগিরই পদায়ন করা হবে বলে জানিয়েছেন আইনমন্ত্রী আনিসুল হক। পাশাপাশি অতিরিক্ত জেলা জজ থেকে জেলা জজ পদে পদোন্নতির কাজ চলছে। যুগ্ম জেলা জজ থেকে অতিরিক্ত জেলা জজ পদে পদোন্নতির ফাইল প্রস্তুতির কাজও চলছে। মামলার জট কমাতে সাতটি বিভাগীয় শহরে সাতটি সাইবার ট্রাইব্যুনাল তৈরি করা হয়। এসব ট্রাইব্যুনালে জেলা জজ পদমর্যাদার বিচারক নিয়োগ না দেওয়ায় ট্রাইব্যুনালগুলোর বিচার কার্যক্রমও শুরু হয়নি। এর ফলে দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে বিচারপ্রার্থীকে ঢাকায় আসতে হয়। ঢাকায় স্থাপন করা বাংলাদেশ সাইবার ট্রাইব্যুনালে বাড়ছে মামলার চাপ। এ ছাড়া ২১টির মতো নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল বিচারকশূন্য অবস্থায় আছে। এসব আদালতেও জেলা জজ পদমর্যাদার বিচারক নিয়োগ পেয়ে থাকেন। শূন্য পদগুলোয় বিচারক নিয়োগ না দেওয়ায় দিন দিন মামলার জটের সৃষ্টি হচ্ছে। এতে বিচারপ্রার্থীদেরও ভোগান্তি বাড়ছে। আর অতিরিক্ত জেলা জজ পদোন্নতির জন্য প্যানেল তৈরি থাকলেও করোনার কারণে তা–ও থেমে আছে। এসব বিষয়ে জানতে চাইলে আইন, বিচার ও সংসদবিষয়ক মন্ত্রী আনিসুল হক প্রথম আলোকে বলেন, বাংলাদেশের কোনো জেলাতেই জেলা জজ পদ খালি নেই। জেলা জজ পদমর্যাদার কিছু পদ খালি আছে। ওই শূন্য পদগুলোয় শিগগিরই পদায়ন করার জন্য কাজ চলছে। কোভিট-১৯ পরিস্থিতির কারণে আদালতও বন্ধ ছিল। তা ছাড়া বিচারকদের নিরাপত্তাসহ সার্বিক দিক বিবেচনা করে পদোন্নতি দেওয়া হয়নি। আইনমন্ত্রী বলেন, পদোন্নতির একটি ফাইল প্রস্তুত আছে। শিগগিরই পদোন্নতি দেওয়ার ব্যবস্থা করা হবে। জেলা জজ পদের এসব শূন্য পদ পূরণ হলেই নিচের দিকের বিভিন্ন ধাপে পর্যায়ক্রমে পদ শূন্য হবে। আইনমন্ত্রী বলেন, অতিরিক্ত জেলা জজ থেকে জেলা জজ পদে পদোন্নতির কাজ চলছে। এ ছাড়া যুগ্ম জেলা জজ থেকে অতিরিক্ত জেলা জজ পদে পদোন্নতির ফাইল প্রস্তুতিরও কাজ চলছে। এরপর তা সুপ্রিম কোর্টে অনুমোদনের জন্য পাঠানো হবে। আইন মন্ত্রণালয় ও সুপ্রিম কোর্ট প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে, বর্তমানে জেলা জজ পদমর্যাদার শূন্য পদের সংখ্যা ৩৫। এ ছাড়া অতিরিক্ত জেলা জজের পদ শূন্য রয়েছে ১১টি। প্রেষণে নিয়োগের কিছু পদও শূন্য রয়েছে। জেলা জজের শূন্য পদ পূরণ হলে নিচের ধাপেও শূন্য পদ তৈরি হবে এবং পদোন্নতির প্রয়োজন হবে। অতিরিক্ত জেলা জজ পদোন্নতি দেওয়ার জন্য আগেই প্যানেল তৈরি করা আছে। ২০১৮ সালের প্রথম দিকে অতিরিক্ত জেলা জজ থেকে জেলা জজ পদে পদোন্নতির প্যানেল সুপ্রিম কোর্টের ফুলকোর্ট সভায় অনুমোদন দেওয়া হয়। এখন ওই প্যানেলভুক্তরাই জেলা জজ পদে পদোন্নতি পাবেন বলে জানা গেছে। এর জন্য প্রয়োজন শুধু প্যানেলের ক্রমানুযায়ী শূন্য পদের তালিকা ও নাম সুপারিশ করে সুপ্রিম কোর্টের অনুমোদন নেওয়া। এরপর সুপ্রিম কোর্টের অনুমোদন সাপেক্ষে পদায়ন দেওয়া হবে। সুপ্রিম কোর্ট সূত্রে জানা গেছে, গত বছরের ১৪ নভেম্বর সুপ্রিম কোর্টের ফুলকোর্ট সভা থেকে বিভিন্ন ধাপে ৬৫০ জন বিচারকের পদোন্নতির প্যানেলের অনুমোদন দেওয়া হয়। এ সভায় যুগ্ম জেলা ও দায়রা জজ থেকে অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ পদে ৩৫৬ জন, সিনিয়র সহকারী জজ থেকে যুগ্ম জেলা ও দায়রা জজ পদে ২১৮ জন এবং সহকারী জজ থেকে জ্যেষ্ঠ সহকারী জজ পদে ৭৮ জনের পদোন্নতির প্যানেল অনুমোদন দেওয়া হয়। জেলা জজ পদে পদোন্নতি দেওয়ার পর অতিরিক্ত জেলা জজ পদে এই প্যানেল থেকেই পদোন্নতি দেওয়া সম্ভব হবে।