গোলান মালভূমিতে বসতি বাড়াচ্ছে ইসরায়েল

বিতর্কিত কৌশলগত এলাকা গোলান মালভূমিতে দুটি নতুন বসতি গড়ার পাশাপাশি অধিবাসী দ্বিগুণ করতে চাইছে ইসরায়েল। দেশটির প্রধানমন্ত্রী নাফতালি বেনেট গত সোমবার এ কথা বলেন। ১৯৬৭ সালের যুদ্ধে ইসরায়েল সিরিয়ার কাছ থেকে গোলান মালভূমি দখল করে নেয়। তবে জাতিসংঘ এখনো একে সিরিয়ার অংশ হিসেবেই বিবেচনা করে থাকে। খবর এএনআই–এর।

নাফতালি বেনেট বলেন, গোলান মালভূমি কৌশলগত লক্ষ্য। ইসরায়েল সরকার সেখানে জনসংখ্যা দ্বিগুণ করতে চায়। গোলান মালভূমি নিয়ে ইসরায়েলের সংবাদপত্র ম্যাকর রিশন–এর এক সম্মেলনে বেনেট এসব কথা বলেন।

বেনেট বলেন, ‘গোলান মালভূমি এলাকা নিয়ে আগামী ছয় সপ্তাহের মধ্যে আলোচনায় বসবে মন্ত্রিসভা। আমাদের লক্ষ্য হচ্ছে, প্রথমে সেখানে জনসংখ্যা দ্বিগুণ করা। এরপর আবার সেখানে জনসংখ্যা দ্বিগুণ করে ফেলা। সেখানে দুটি নতুন বসতি গড়া হবে। এ ছাড়া আরও নতুন কর্মসংস্থান সৃষ্টির পাশাপাশি অবকাঠামোগত বিনিয়োগ করা হবে।’

দীর্ঘদিন ধরে গৃহযুদ্ধে জর্জরিত সিরিয়ার পরিস্থিতি সম্পর্কেও কথা বলেন বেনেট। তবে তাঁর মন্তব্য হচ্ছে, গোলান মালভূমিকে নিজেদের এলাকা হিসেবেই দেখে ইসরায়েল।


বিবিসির এক খবরে বলা হয়, ১৯৬৭ সালে আরবদের সঙ্গে ছয় দিনের যুদ্ধে সিরিয়ার গোলান মালভূমি দখল করে নেয় ইসরায়েল। পরে ১৯৮১ সালে এসে এলাকাটি নিজেদের অংশ বলে ঘোষণা দেয়। কিন্তু আন্তর্জাতিক মহল কখনো ইসরায়েলের এ দাবির স্বীকৃতি দেয়নি। ২০১৯ সালে ডোনাল্ড ট্রাম্পের অধীন মার্কিন প্রশাসন ইসরায়েলের সার্বভৌমত্বকে স্বীকৃতি দিয়ে একটি নির্দেশ জারি করে। তবে ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন, রাশিয়াসহ অনেক দেশ এর সমালোচনা করে।