১০ বছর পর সিনেমায় ফিরলেন নাঈম

২০১১ সালে প্রথম সিনেমায় অভিনয় করেন ছোট পর্দার অভিনেতা এফ এস নাঈম। ‘জাগো’ নামের সেই ছবির পর গত ১০ বছর তাঁকে আর নতুন কোনো সিনেমায় দেখা যায়নি। এর কারণ সিনেমার চিত্রনাট্য, গল্পে সন্তুষ্ট ছিলেন না। অনেক চিত্রনাট্য হাতে পেলেও কোনোটি ৫০ ভাগের বেশি খুশি করতে পারছিল না। তাই অপেক্ষায় ছিলেন। ফলও পেলেন। এক দশক পরে শতভাগ খুশি হয়ে বড় পর্দায় ফিরছেন নাঈম।
অরুণ চৌধুরীর পরিচালনায় সরকারি অনুদানের ছবি ‘জলে জ্বলে তারা’য় গতকাল চুক্তিবদ্ধ হয়েছেন এই অভিনেতা। তাঁর সহ-অভিনেতা রাফিয়াত রশিদ মিথিলা। নাঈম জানান, গান যখন নিয়মিত করা হলো না, তখন অভিনয়ের দিকেই মনোযোগী হয়েছিলেন। চেয়েছিলেন সিনেমা কম করলেও নিজের পছন্দেই করবেন।

তিনি বলেন, ‘এক মাস আগে সিনেমাটির টিম থেকে আমাকে বলা হলো একটি চরিত্র আছে। এটা আপনার জন্যই পারফেক্ট। তারা চিত্রনাট্যটি পাঠানোর পরে মনে হলো প্রথম সিনেমা করার পরে এই দশ বছরে যে অভিজ্ঞতা অর্জন করেছিলাম, সেটা এই সিনেমার জন্যই। সিনেমাটির জন্য এখন পুরো লুক বদল করেছি। ফেসবুকে লুকের ছবি দিচ্ছিলাম। সবাই বলছিল নতুন নাঈম। কিন্তু আমি মুখ বন্ধ করে ছিলাম। শুধু রিহার্সালটাই করে গেছি।’
নাঈমের কথায় ঘুরেফিরে এল মিথিলা। তাঁরা একসঙ্গে সিনেমায় অভিনয় করতে পেরে উচ্ছ্বসিত। ২০০৭ সাল থেকেই তাঁরা খুবই কাছের বন্ধু। তখন তাঁরা গান নিয়ে ব্যস্ত ছিলেন। সেই থেকেই বন্ধুত্ব। একসঙ্গে অনেক নাটকও করেছেন। এবার তাঁদের বড় পর্দায় দেখা যাবে।

একসঙ্গে অনুশীলনের অভিজ্ঞতা ভাগাভাগি করে নাঈম বলেন, ‘আমরা যখন চিত্রনাট্য পড়ি, তখন রোমান্টিক, স্যাড—যেকোনো দৃশ্য এলেই প্রচুর হাসতাম। দুজন অনেক মজা করছি। তাকে বলি ছোট্ট মিথিলা তুই কত বড় হয়ে গেছিস। সে–ও আমাকে একই কথা বলে। মজা করেই কাজটি করব আমরা।’ সিনেমায় কী ধরনের চরিত্র, জানতে চাইলে নাঈম বলেন, ‘চরিত্র নিয়ে এখনই কিছু বলা বারণ। এটুকু বলব, বাংলাদেশে এর আগে এ ধরনের চরিত্র সচরাচর দেখা যায়নি। কাজটা ঠিকমতো করতে পারলে দর্শক ভিন্ন স্বাদের একটি সিনেমা পাবেন।’

আগামীকাল ১৪ অক্টোবর থেকে সিনেমাটির সব পূর্বপ্রস্তুতি শেষ হবে। কালই শুটিং লোকেশনে পৌঁছাবে পুরো টিম। পরের দিন থেকে মানিকগঞ্জে শুরু হবে শুটিং। সিনেমায় আরও অভিনয় করছেন ফজলুর রহমান বাবু, মনিরা মিঠু, আজাদ আবুল কালাম, নূর ইমরান মিঠু। সিনেমায় দুটি গানে কণ্ঠ দেবেন কুমার বিশ্বজিৎ ও ইমরান। ২০২০-২১ অর্থবছরে সিনেমাটি অনুদান পায়।