প্রধানমন্ত্রীর তহবিলে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষকদের অর্থ দেওয়ার আহ্বান ফেডারেশনের

করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কারণে বাংলাদেশসহ পুরো পৃথিবীতে চলছে অচলাবস্থা। দৈনিক খেটে-খাওয়া হতদরিদ্র মানুষের ওপর এর প্রভাব ইতিমধ্যে পড়তে শুরু করেছ। ভবিষ্যতে এর ফলাফল সুদূরপ্রসারী হবে বলে মনে করে বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি ফেডারেশন। আর তাই মানবিক সহায়তার অংশ হিসেবে নিজেদের এক বা দুই দিনের বেতনের সমপরিমাণ অর্থ প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে দিতে পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর শিক্ষকদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে সংগঠনটি। বৃহস্পতিবার বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি ফেডারেশনের সভাপতি এ এস এম মাকসুদ কামাল ও মহাসচিব মো. নিজামুল হক ভূইয়া গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিজ্ঞপ্তিতে শিক্ষকদের প্রতি এই আহ্বান জানান। দেশের ৪৬টি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রায় সাড়ে ১৩ হাজার শিক্ষকের প্রতি আহ্বান জানিয়ে বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ‘মানবিক সহায়তার অংশ হিসেবে বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি ফেডারেশনের পক্ষ থেকে দেশের সব পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের এক বা দুই দিনের বেতনের সমপরিমাণ অর্থ প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে দেওয়ার আহ্বান জানাই। যখন আমরা সবাই বাড়ির ভেতরে সময় কাটাচ্ছি, এ সময় এই মানবিক সহযোগিতার সঠিক প্রয়োগ ও যথাযথ ব্যবহার নিশ্চিত করতে হলে প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে দেওয়াই যুক্তিযুক্ত হবে বলে আমরা মনে করি। বৈশ্বিক বিপর্যয়কালে এই মানবিক সহযোগিতার মাধ্যমে আমরা সংবেদনশীলতার সঙ্গে এ কথাই প্রকাশ করতে চাই যে বাংলাদেশের সাধারণ মানুষের সঙ্গে শিক্ষকসমাজ আছে এবং ভবিষ্যতেও থাকবে।’ বিজ্ঞপ্তিতে শিক্ষকদের উদ্দেশে আরও বলা হয়, ‘বিশ্বের অন্যান্য দেশের মতো বাংলাদেশেও করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ দেখা দিয়েছে এবং আইইডিসিআরের মতে, ইতিমধ্যে কমিউনিটি পর্যায়ে এর প্রসারও ঘটছে। এই প্রেক্ষাপটে স্বাস্থ্যবিষয়ক সতর্কতার অংশ হিসেবে সব ধরনের জনসমাগম, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ও অফিস-আদালত বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। বাংলাদেশসহ বিশ্বব্যাপী ভাইরাসটি আরও ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কা করছেন অনেকেই। এর ফলে স্বাস্থ্যসেবায় আরও বেশি আর্থিক বরাদ্দ যেমন প্রয়োজন হবে, তেমনি বৈশ্বিক অর্থনীতির মন্দার প্রভাবসহ আমাদের আর্থিক ও সামাজিক ব্যবস্থা হুমকির মুখে পড়ার বিরুদ্ধেও আমাদের সজাগ থাকতে হবে। বর্তমানে দৈনিক খেটে-খাওয়া, হতদরিদ্রসহ বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষের ওপর এর প্রভাব ইতিমধ্যে পড়তে শুরু করেছে। সরকার এসব মানুষের খাদ্যনিরাপত্তা জন্য নানা কর্মসূচি হাতে নিয়েছে, অন্য অনেক ব্যক্তি-প্রতিষ্ঠানও আসছে। সমাজের অগ্রসর মানুষ হিসেবে এই চ্যালেঞ্জ থেকে উত্তরণের জন্য আমাদেরও জোরালো ভূমিকা নেওয়ার আজ প্রয়োজন দেখা দিয়েছে।’ ’ বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি ফেডারেশনের সভাপতি ও মহাসচিব ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতিরও শীর্ষ নেতা। শিক্ষকদের সঙ্গে কথা বলে তাঁরা ইতিমধ্যে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের দুই দিনের বেতনের সমপরিমাণ অর্থ প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।